আর্থিং ব্যাবহার করে বিদ্যুৎ থেকে নিরাপদ থাকুক এবং জীবন বাঁচান। বৈদ্যুতিক দুর্ঘটনা এড়াবার জন্য আর্থিং বা গ্রাউন্ডিং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।

আর্থিং ব্যাবহার করে বিদ্যুৎ থেকে নিরাপদ থাকুক এবং জীবন বাঁচান। বৈদ্যুতিক দুর্ঘটনা এড়াবার জন্য আর্থিং বা গ্রাউন্ডিং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। কিন্তু নিরাপত্তার এই দিকটি সম্পর্কে আমরা সঠিকভাবে জানি❓

বৈদ্যুতিক দুর্ঘটনা এড়াবার জন্য আর্থিং

আর্থিং কিআর্থিং এর প্রয়োজনীতা কি❓
অনাকাঙ্খিত বিদ্যুৎ থেকে বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি ও মানুস কে রক্ষা করতে বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতির ধাতু/মেটাল নির্মিত বহিরাবরণ থেকে বৈদ্যুতিক কারেন্টকে কোনো পরিবাহীর দ্বারা পৃথিবীর মাটিতে প্রেরণ করার ব্যবস্থা কে আর্থিং বলে।

আর্থিং সরাসরি মাটির সাথে যুক্ত থাকে আর নিউট্রাল লাইন পাওয়ার স্টেশনে বা ট্রান্সফরমারেই ফেরত যায়।

নিউট্রাল কারেন্টের জন্য অপেক্ষাকৃত ছোট পথ (সার্কিট) প্রদান করে আর আর্থিং ব্যবহারকারীকে নিরাপত্তা প্রদান করে।

নরমাল অপারেশনে নিউট্রালে কারেন্ট প্রবাহিত হয় আর আর্থিং শুধু বিপদজনক পরিস্থিতিতে শর্ট সার্কিটের মাধ্যমে দ্রুত বিদ্যুৎ মাটিতে পৌছিয়ে দেয়। এ সময় ফিউজ জ্বলে যায় এবং ব্যবহারকারী ও যন্ত্র রক্ষা পায়।

আধুনিক মানুষের জীবনের সবকটি মৌলিক চাহিদা পুরনের সবচেয়ে বড় হাতিয়ার বিদ্যুৎ যার ছোঁয়ায় মানুষের জীবন সহজতর হয়েছে, হয়েছে আরামপ্রদ।মানুষ তার স্বপ্নকে হাতের মুঠোয় বন্দী করে ফেলেছে বিদ্যুতের কল্যানে! শহর-মহানগরের সীমানা পেরিয়ে বিদ্যুৎ পৌঁছে গেছে দেশের প্রত্যন্ত গ্রামেও। দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের পিছনে বিদ্যুৎ নেটওয়ার্কের এই ব্যপ্তি সবচেয়ে বড় ভূমিকা পালন করেছে। বাসা, অফিস, কারখানা, শপিং মল, ক্ষেত-খামারবিনোদন কেন্দ্র তথা যেখানে মানুষ সেখানেই বিদ্যুৎ, বিদ্যুতের নেটওয়ার্কের মধ্যে থেকে তার সাহায্যে মানুষকে দৈনন্দিন জীবনের কাজ করতে হবে, এটা অবধারিত সত্যে পরিনত হয়ে গেছে। কিন্তু এই বিদ্যুৎ আসলে একটি বিপজ্জনক শক্তি! এটি যেমন আপনাকে কিছু তৈরি করে দিতে পারে, আবার ধ্বংস করেও দিতে পারে। তাই বিদ্যুতকে ব্যবহার করতে হবে কৌশলে, নিয়মানুযায়ী। প্রচুর খরচ করে কোন অবকাঠামো নির্মাণ করলেও অনেক সময় অজ্ঞতা বা অসচেতনতার কারনে এর ইলেকট্রিক সিস্টেম ঠিকমতো ডিজাইন করা হয়না। ফলে, মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে থেকেও আমরা বুঝতেই পারিনা বিষয়টা।

অনেকের ধারনা, ভালো এবং উন্নত মানের সরঞ্জাম যেমন ক্যাবল বা তার, সুইচ, সার্কিট ব্রেকার, কন্ডুইট পাইপ ইত্যাদি ব্যবহার করলেই ঝুঁকিমুক্ত হওয়া যায়। আসলে, ব্যাপারটি পুরোপুরি ঠিক নয়। হ্যাঁ, এটা অনস্বীকার্য যে ভালো এবং উন্নতমানের সরঞ্জামের কোন বিকল্প নেই। কিন্তু, সবচেয়ে বড় ব্যাপারটি হচ্ছে সিস্টেম ডিজাইন। সঠিক মাত্রার বিদ্যুৎ পরিবহনের জন্য সঠিক সরঞ্জাম উপযুক্তভাবে ব্যবহার নিশ্চিত করাটাই সবচেয়ে জরুরী। যেকোনো বৈদ্যুতিক সিস্টেমে গ্রাউন্ডিং বা আর্থিং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। বিশেষ করে আমাদের দেশের সিস্টেমে এটা অপরিহার্য। বিশ্বজনীনভাবে ব্যবহৃত এসি (অল্টারনেটিং কারেন্ট) ইলেক্ট্রিক্যাল সিস্টেমে গ্রাউন্ডিং বলতে মুলত সিস্টেম নিউট্রালকে আর্থ তথা মাটির সাথে সংযুক্ত করাকে বোঝায়। আর্থ বা মাটি হচ্ছে ইলেকট্রনের সবচেয়ে বড় আধার। তাই, মাটির সাথে নিউট্রালকে সংযুক্ত করা হলে সিস্টেম স্টাবিলাইজড হয়। বিভিন্ন কারনে সরবরাহ লাইনে অতিরিক্ত ভোল্টেজ আসতে পারে, যা লাইনের সাথে সংযুক্ত দৈনন্দিন কাজে ব্যবহার্য যন্ত্রপাতির মধ্যে দিয়ে প্রবাহিত হয়। প্রতিটি বৈদ্যুতিক যন্ত্রের একটা নির্দিষ্ট ভোল্টেজ টলারেন্স থাকে, যার অতিরিক্ত ভোল্টেজ ওই যন্ত্রটিকে বিনষ্ট করে দিতে পারে এমনকি দুর্ঘটনা পর্যন্ত ঘটাতে পারে। আমরা বজ্রপাতের কিংবা অন্য যেকোনো সময়ে এরকম দুর্ঘটনা দেখি বা শুনতে পাই। সঠিক গ্রাউন্ডিং সিস্টেমই কেবল এই ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা প্রতিরোধ করতে পারে। এখন দেখা যাক, কীভাবে এবং কোন কোন ক্ষেত্রে আর্থিং বা গ্রাউন্ডিং সিস্টেম বিদ্যুৎ ব্যবস্থাকে নিরাপদ রাখে। আমরা জানি সরবরাহ লাইন সিঙ্গেল ফেজ বা থ্রী ফেজ হয়। দুই ক্ষেত্রেই একটা নিউট্রাল থাকে। এটা যখন মাটির সাথে যুক্ত থাকে অর্থাৎ গ্রাউন্ডিং থাকে তখন-

☞ লাইনের ত্রুটি বা বজ্রপাতের কারনে সৃষ্ট অতিরিক্ত যে ভোল্টেজ এবং কারেন্ট প্রবাহিত হয় সেটা আর্থিং তারের মধ্যে দিয়ে মাটিতে চলে যায়।

☞ আপনার আঙ্গিনায় কোন একটি যন্ত্রে বা ওয়ারিং এ বৈদ্যুতিক শর্ট- সার্কিট হলে ত্রুটিপুর্ন অংশের মধ্য দিয়ে অতিরিক্ত কারেন্ট প্রবাহিত হয়। গ্রাউন্ডিং সঠিক না থাকলে এই কারেন্ট অবশিষ্ট অংশ অর্থাৎ ত্রুটিমুক্ত অংশের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়ে সম্পুর্ন সিস্টেমকে ধ্বংস করে দিতে পারে, এবং এর ফলে সম্পদ ও প্রানহানীর আশঙ্কা দেখা দিতে পারে। কিন্তু, গ্রাউন্ডিং সঠিক থাকলে কারেন্ট শুধুমাত্র ত্রুটিপুর্ন অংশের মধ্য দিয়েই প্রবাহিত হয়ে মাটিতে চলে যায়।

স্বাভাবিক অবস্থাতেও অনেক সময় দেখা যায় ভোল্টেজ উঠা-নামা করে যা মটর,ফ্যান, টিভি, ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্রাদি ইত্যাদিকে নষ্ট করে বা জীবনকাল কমিয়ে দিতে পারে। গ্রাউন্ডিং বা আর্থিং সঠিকভাবে করা হলে ভোল্টেজ স্টাবিলাইজড থাকে, ফলে এইসব যন্ত্রপাতির ক্ষতি হয়না এবং কাঙ্ক্ষিত কাল ব্যাপী সেগুলো সঠিকভাবে সার্ভিস দিতে থাকে

যেসব ইলেক্টিক যন্ত্রপাতির বহিরাবরণ ধাতুর তৈরি, সেসব যন্ত্রপাতির বডি আর্থিং করতে হয়। কারন, এইসব যন্ত্রপাতিতে সবসময় হাতের ছোঁয়া লাগে। বাসায় আমরা সচরাচর খালি পায়ে থাকি। যদি কখনো ধাতব বহিরাবরনের কোন যন্ত্রপাতি যেমন ফ্রীজার বা রেফ্রিজারেটর বিদ্যুতায়িত অবস্থায় খালি পায়ে ধরা হয় তাহলে শরীরের ভিতর দিয়ে বিদ্যুৎ প্রবাহিত হয়ে মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে। এমন ঘটনা হয়ত আমরা নিজেরাও প্রত্যক্ষ করেছি বা শুনেছি। যদি সঠিক গ্রাউন্ডিং সিস্টেম থাকে এবং ধাতব যন্ত্রপাতিকে তার সাথে যুক্ত করা হয়, তাহলে এই রকম ঘটনার ঝুঁকি থাকবেনা।

ক্লিকসেবা ডট কম থেকে সার্ভিস বুকিং করুন ☎ 01707078003

CSP Verified Service Providers:-
 Our Expert- Background Checked.
 Our Expert- Clean and Respectful.
 Our Expert- Friendly and Helpful.
 Our Expert- Honest and Responsive.
 Our Expert- Professional Service At Your Doorstep.

সাথে পাচ্ছেনঃ-
 Proof of Truth সার্ভিস পার্টনার
 দক্ষ টেকনিশিয়ান দারা মনিটরিং।
 ২৪/৭ কাস্টমার কেয়ার সাপোর্ট।

আপনার স্বপ্ন সাজুক CLICKSEBA.COM এর ছোঁয়ায়…
CLICKSEBA.COM এর সর্বশেষ আপডেট পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।