fbpx
আপনি জানেন কি? কিছু নিয়ম মেনে যদি আপনি এসি চালান তবে বিদ্যুৎ বিল কম আসবে? এসি রিপেয়ার সার্ভিস। - কিভাবে আপনি আপনার হ্যাক হওয়া ফেইসবুক আইডি পুনরুদ্ধার করবেন? - রিমেম্বারিং (হ্যাক) হওয়া ফেইসবুক আইডি পুনরুদ্ধার করার নিয়ম। - বিশ্ব বিখ্যাত কোম্পানি ALLANA.COM থেকে আমদানিকৃত ফ্রোজেন মহিষের মাংস। - উদ্যোক্তা হতে চাইলে অবশ্যই নিজের ইচ্ছাশক্তি আর ধৈর্য প্রয়োজন - উদ্যোক্তা জান্নাতুল ফেরদৌস মীম। - কল সেন্টারে চাকরির চাহিদা, সুযোগ, যোগ্যতা ও ক্যারিয়ার। - এখন আপনি ঘরে বসেই CLICKSEBA অ্যাপে পরিবারের সমস্ত পরিসেবা পাবেন! - ই-কমার্স প্রোডাক্ট, ডেলিভারি ম্যান পদে- CLICKSEBA.COM এ, নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি! - কাস্টমার কেয়ার এবং টেলিসেলস এক্সিকিউটিভ পদে- নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি! - ব্র্যাকের প্রতিষ্ঠাতা স্যার ফজলে হাসান আবেদের জীবনাবসান

আপনি জানেন কি? কিছু নিয়ম মেনে যদি আপনি এসি চালান তবে বিদ্যুৎ বিল কম আসবে? এসি রিপেয়ার সার্ভিস।

আপনি জানেন কি? কিছু নিয়ম মেনে যদি আপনি এসি চালান তবে বিদ্যুৎ বিল কম আসবে?

এসি রিপেয়ার সার্ভিস

কর্ম ব্যাস্ত জীবনে কাজের শেষে শান্তিতে ঘুমাতে ঘরে এসি লাগাতে চান অনেকে। তবে এসি লাগাতে চাইলেও বিদ্যুৎ বিল বেশি আসার কারণে অনেকে এসি লাগাতে চান না।

✅ এসির টেম্পারেচার অবশ্যই ২৪ থেকে ২৬ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডের মধ্যে রাখতে হবে।

✅ রাতে স্লিপ মোডে এসি চালান। বিদ্যুৎ অপচয় কমবে।

✅ ভোরের দিকে এসি বন্ধ করে দেওয়ার অভ্যাস তৈরি করুন।

✅ রাতে ৪-৫ ঘণ্টা এসি চললে, পরবর্তী কিছুক্ষণ এসি ছাড়া থাকাই যায়।

✅ আপনার এসি বেশি পুরনো মডেলের হয়ে গেলে তা বদলে নিন। পুরনো মডেলের এসিগুলো সে রকম বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী নয়।

✅ এসিতে টাইমার ব্যবহার করুন যাতে ঘর ঠাণ্ডা হয়ে গেলে অটোম্যাটিক বন্ধ হয়ে যায় যন্ত্রটি।

✅ দিনের বেলা ঘরে তাপ ঢোকার উৎসগুলিকে বন্ধ করুন।

✅ আপনার সিলিং ফ্যানটিকেও ব্যবহার করুন এসির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে।

✅ এসির ফিল্টারটি নির্দিষ্ট সময়ে সার্ভিসিং খুবই জরুরী।

আপনার এসি CLICKSEBA.COM টিমের দক্ষ টেকনিশিয়ান দ্বারা সার্ভিসিং করাতে আজই বুকিং দিন- 01707078003

বিঃদ্রঃ স্কুল, কলেজ, হাসপাতাল, ব্যাংক, বীমা এবং অন্যান্য যে কোন করর্পোরেট অফিস ও দোকানের মাসিক বা বাৎসরিক চুক্তিতে সার্ভিস দেওয়া হয়।

কিভাবে আপনি আপনার হ্যাক হওয়া ফেইসবুক আইডি পুনরুদ্ধার করবেন?

কিভাবে আপনি আপনার হ্যাক হওয়া ফেইসবুক আইডি পুনরুদ্ধার করবেন?

Facebook

ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক করে আপনাকে খুব সহজেই বিপদে ফেলতে পারে হ্যাকাররা। তাই খুব দ্রুত সম্ভব আপনি নিজেই আপনার ফেইসবুক আইডিটি পুনরুদ্ধার করতে পারেন নিম্নোক্ত কয়েকটি সহজ ধাপের মাধ্যমে।

১) প্রথমেই এই লিঙ্কে যান http://www.facebook.com/hacked

২) একটি পেজ আসবে, এখান থেকে “My account is compromised” এই বাটনে ক্লিক করুন।
৩) হ্যাক হওয়া একাউন্টটির তথ্য চাইবে এখানে। উল্লেখ করা ৩ টি অপশনের যেকোন একটির ইনফরমেশন দিন। দিয়ে ক্লিক করুন সার্চ এ ক্লিক করুন-

৪) আপনার প্রদত্ত তথ্য সঠিক হলে আপনার একাউন্টটিই দেখাবে এখানে

৫) এখন “This is My Account” এ ক্লিক করুন।
৬) ক্লিক করার পর আপনার পুরাতন পাসওয়ার্ডটি চাইবে।

এখানে আপনার পুরাতন পাসওয়ার্ড টি দিয়ে “Continue” করুন।
আপনাকে একটা কনফার্মেশন মেসেজ দিবে। তার পরে কন্টিনিউ করে পরের স্টেপ গুলি পার করুন। সাধারনত পরের স্টেপে আপনার কাছ থেকে একটা নতুন পাসোয়ার্ড চাওয়া হবে। পরের ফর্মগুলো পূরন করলে ফেসবুক থেকে আপনার একাউন্ট আবার ফেরত পেয়ে যাবেন!

*বিকল্প পদ্ধতি

যদি দেখেন ফেসবুক একাউন্টের পাসওয়ার্ড হ্যাক হয়েছে এবং আপনার মেইল একাউন্টটি ঠিক থাকে তবে এই লিঙ্ক থেকে রিকুয়েস্ট পাঠালে পাসওয়ার্ড সমাধান পাওয়া যাবে। https://ssl.facebook.com/reset.php

যদি ওপরের লিঙ্কে কাজ না হয় তবে পাসওয়ার্ডটি পাওয়ার জন্য নিম্ন লিখিত লিঙ্কে ক্লিক করতে হবে। পরবর্তী নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করতে হবে http://www.facebook.com/help/¬identify.php?show_for-m=hack_login_changed

যদি ই-মেইল এড্রেসটি পরিবর্তন হয়ে যায় তবে নিম্নলিখিত লিঙ্কে ক্লিক করতে হবে। ফর্মটি পূরণ করে পাঠালে ফেসবুকের কর্মকর্তারা যোগাযোগ করবে।

https://ssl.facebook.com/help/contact.php?show_form=hacked_self_recovery

যদি এর কোন পদ্ধতি ব্যবহার করেও আপনি আপনার ফেইসবুক আইডি উদ্ধার করতে পারছেন না তাহলে আইনি সহায়তা নিন।

পুলিশ এবং বিটিআরসিকে জানিয়ে রাখুন যাতে পরবর্তীতে আপনার একাউন্ট ব্যবহার করে কেউ অপরাধমূলক কোন কাজ করলে আপনি বেচে যান।

আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে গেলে আপনার সামনে দুটি উপায় খোলা আছেঃ-
১) অ্যাকাউন্টটি পুনরুদ্ধার করা।
২) অ্যাকাউন্টটি চিরতরে ডিলেট করে দেওয়া।

দুটি ক্ষেত্রেই আপনাকে সহযোগিতা করবে তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয়। মাত্র ০৩ দিনের ভেতর হ্যাক হওয়া অ্যাকাউন্টটি উদ্ধার করে দেবে অথবা আপনার অনুমতি সাপেক্ষে ডিলেট করে দেবে!

অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে গেলে প্রথমেই করনীয় কাজ হল এলাকার পুলিশ ষ্টেশন এ গিয়ে জিডি করা। জিডি করার অভিজ্ঞতা না থাকলে থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা ও আপনাকে সাহায্য করবেন। দায়িত্তরত পুলিশ কর্মকর্তা এর সামনে বসে আপনার সমস্যার কথা জানিয়ে একটা সাধারন ডায়েরি করবেন। জিডি করা শেষে আপনাকে জিডির একটি কপি দেওয়া হবে। এই কপিটি খুব যত্নের সাথে রেখে দিবেন!

জিডি করা শেষে আপনার দ্বিতীয় কাজ হবে তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রনালয় এর সাইবার নিরাপত্তা হটলাইনে ফোন করে তাদের সাথে যোগাযোগ করা!

সাইবার নিরাপত্তা হটলাইনে নাম্বারঃ 01766678888 (সকাল ১০ টা থেকে বিকেল ৫ টা এর ভেতর যোগাযোগ করবেন, শুক্রবার বন্ধ থাকে) তারা জানতে চাইবে আপনার অ্যাকাউন্টটি কি পুনরুদ্ধার করতে চান? নাকি অ্যাকাউন্টটি চিরতরে ডিলেট করে দিতে চান?

আপনার সমস্যা শোনার পর তারা আপনাকে একটি ইমেইল অ্যাড্রেস দেবে। ইমেইল অ্যাড্রেস হলো info@cybernirapotta.net এই ইমেইল অ্যাড্রেস এ আপনাকে যে অ্যাটাচমেন্ট গুলো পাঠাতে বলা হবে সেগুলো হচ্ছেঃ

১) জিডির স্ক্যান করা কপি।
২) ভোটার আইডি কার্ড এর রঙ্গিন স্ক্যান কপি (রঙ্গিন হওয়া আবশ্যক)।
৩) হ্যাক হওয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্ট এর লিংক।
৪) ইতিপূর্বে কখনও কোথাও ব্যবহার করা হয়নি এমন সম্পূর্ণ নতুন খোলা একটি ইমেইল আইডি।

সব অ্যাটাচমেন্ট সহ ইমেইল পাঠিয়ে দেওয়ার পর চাইলে আপনি আবার হটলাইনে কল করে আপনার ইমেইল পেয়েছে কি না সে বিষয়ে নিশ্চিত হতে পারেন। এরপর ০৩ দিনের ভেতর আপনার হ্যাক হয়ে যাওয়া অ্যাকাউন্ট উদ্ধার করে আপনাকে ফোন দিয়ে জানানো হবে।
নিরাপদ হোক আপনার সাইবার জগৎ!

সূত্রঃ dailyinqilab.com

রিমেম্বারিং (হ্যাক) হওয়া ফেইসবুক আইডি পুনরুদ্ধার করার নিয়ম।

ফেইসবুক আইডি

ফেসবুক একাউন্ট রিমেম্বারিং (হ্যাক) করে আপনাকে খুব সহজেই বিপদে ফেলতে পারে হ্যাকাররা। তাই আপনি নিজেই আপনার ফেইসবুক আইডিটি পুনরুদ্ধার করতে পারেন নিম্নোক্ত কয়েকটি সহজ ধাপের মাধ্যমে।

হ্যাকাররা যখন আপনার বিরুদ্ধে ফেইসবুক কতৃপক্ষের কাছে রিপোর্ট করেছে, আপনি মারা গেছেন, তখন তারা আপনার নামের একটি ভুয়া ডেট সার্টিফিকেট ফেইসবুক কতৃপক্ষের কাছে জমা দিয়েছে।

রিমেম্বারিং (হ্যাক) হওয়া ফেইসবুক আইডি

আপনি কিভাবে প্রমাণ করবেন, আপনি জীবিত আছেন? ভোটার আইডি কার্ড আপনার হাতে নিয়ে একটি সেল্ফি তুলতে হবে এবং তা ফেইসবুক কতৃপক্ষের কাছে জমা দিতে হবে।

✅ প্রথমেই এই লিঙ্কে যান- https://m.facebook.com/help/contact/292558237463098

✅ রিমেম্বারিং (হ্যাক) হওয়া একাউন্টটির তথ্য চাইবে। যেমন আপনার নাম, জন্মতারিখ, ই-মেইল এবং ভোটার আইডি কার্ডের ছবি। তথ্যগুলো দেওয়া পর সাবমিট করুন।

✅ ২৪ ঘন্টার মধ্যে আপনাকে ফেইসবুক কতৃপক্ষ একটি ই-মেইল করবে, ইমেইলে উল্লেখ করা থাকবে- ভোটার আইডি কার্ড আপনার হাতে নিয়ে একটি সেল্ফি তুলতে হবে এবং তা ফেইসবুক কতৃপক্ষের কাছে জমা দিতে হবে।

সেল্ফি

✅ সেল্ফি জমা দেওয়ার জন্য আবারও আপনাকে এই লিংকে ক্লিক করতে হবে- https://m.facebook.com/help/contact/292558237463098 এবং আপনার নাম, জন্মতারিখ, ই-মেইল এবং ভোটার আইডি কার্ড হাতে নিয়ে তোলা সেল্ফিটি দিতে হবে।

✅ ২৪ ঘন্টার মধ্যে আপনাকে ফেইসবুক কতৃপক্ষ আপনাকে একটা কনফার্মেশন মেসেজ দিবে, মেসেজে উল্লেখ করা থাকবে- “Thanks for responding. I sincerely apologize for this issue and the inconvenience it caused. I’ve gone ahead and placed a note on your account to help make sure this doesn’t happen again”

✅ তার পরে আপনি স্বাভাবিক নিয়মের আপনার ফেইসবুক আইডি লগইন করুন এবং পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করুন।।

বিশ্ব বিখ্যাত কোম্পানি ALLANA.COM থেকে আমদানিকৃত ফ্রোজেন মহিষের মাংস।

ALLANA.COM -এর মহিষের মাংস, বিশ্বের সমস্ত মুসলিম কান্ট্রির চাহিদা মিটিয়ে এখন বাংলাদেশে…

হাড়ছাড়া মহিষের মাংস

মহিষের মাংসে প্রচুর পরিমাণে আমিষ, খনিজ পদার্থ ও কলেস্টেরল থাকায় বাড়ন্ত বয়সের কিশোর-তরুণ ও প্রসূতি মায়েদের শরীরে প্রয়োজনীয় পুষ্টির ঘাটতি মেটাতে নিয়মিত মাংস খাওয়া উচিত।

আমরা ALLANA.COM -এর হিমায়িত মহিষের মাংসের বিস্তৃত পরিসীমা সরবরাহ করি এবং আমরা সমস্ত মাংসজাত পণ্যের 100% হালাল শংসাপত্রের গ্যারান্টি দিয়ে থাকি।

🐃 মহিষের কলিজা- ৩২০ টাকা কেজি, মিনিমাম অর্ডার ৫ কেজি। ৩২০x৫=১৬০০ টাকা।

🐃 মহিষের মাথার মাংস- ৩৫০ টাকা কেজি, মিনিমাম অর্ডার ৫ কেজি। ৩৫০x৫=১৭৫০ টাকা।

🐃 মহিষের সিনার মাংস- ৪২০ টাকা কেজি, মিনিমাম অর্ডার ৩ কেজি। ৪২০x৩=১২৬০ টাকা।

🐃 মহিষের রানের মাংস- ৫২০ টাকা কেজি, মিনিমাম অর্ডার ৫ কেজি। ৫২০x৫=২৬০০ টাকা।

🐃 মহিষের কাবাবের মাংস- ৫২০ টাকা কেজি, মিনিমাম অর্ডার ৫ কেজি। ৫২০x৫=২৬০০ টাকা।

🐃 মহিষের পায়া- ৩০০ টাকা কেজি, মিনিমাম অর্ডার ৫ কেজি। ৩০০x৫=১৫০০ টাকা।

অর্ডার করতে এখনই আমাদের ফেইসবুক ইনবক্সে আপনার মোবাইল নাম্বার দিন, আমরাই আপনার সাথে যোগাযোগ করবো অথবা ফোন করুন ☎️ 09613 700 800 নাম্বারে।

বিঃদ্রঃ ডেলিভারি চার্জ ১০০ টাকা (শুধুমাত্র ঢাকা সিটি)

উদ্যোক্তা হতে চাইলে অবশ্যই নিজের ইচ্ছাশক্তি আর ধৈর্য প্রয়োজন – উদ্যোক্তা জান্নাতুল ফেরদৌস মীম।

“উদ্যোক্তা হতে চাইলে অবশ্যই নিজের ইচ্ছাশক্তি আর ধৈর্য প্রয়োজন” – উদ্যোক্তা জান্নাতুল ফেরদৌস মীম।।  

BD NEWS প্রতিবেদন-
বাংলাদেশের প্রথম প্রধান বিচারপতি আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম, খ্যাতনামা পরমাণু বিজ্ঞানী এম এ ওয়াজেদ মিয়া, বাংলার মুসলিম নারী জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়া সহ আরও অসংখ্য খ্যাতনামা ব্যক্তির তীর্থ ভূমি বাংলাদেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল জেলা রংপুর। প্রখ্যাত এই জেলার তরুণ উদ্যোক্তা জান্নাতুল ফেরদৌস মীম।।  

রংপুর সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক এবং রংপুর সরকারী কলেজে থেকে উচ্চ মাধ্যমিক সম্পন্ন করে বর্তমানে রংপুর কারমাইকেল কলেজে  মার্কেটিং বিভাগে স্নাতক শেষ বর্ষে অধ্যায়নরত রয়েছেন এই মেধাবী তরুণ উদ্যোক্তা।। 
পড়াশোনার পাশাপাশি বিভিন্ন বিষয়ের উপর লেখালিখি করেন। স্কুল পর্যায়ে গার্লস গাইড, আন্তঃস্কুল ক্রিকেট টুর্নামেন্ট সহ বিভিন্ন খেলাধুলায় যুক্ত ছিলেন। এছাড়াও শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সংগঠন “কাকাশিস”, সেচ্ছাসেবী সংগঠন “মৃত্তিকা”, বাঁধন সহ বেশ কিছু সংগঠনের সাথেও যুক্ত রয়েছেন মীম।।      

ছোটবেলা থেকেই দুরন্ত প্রকৃতির আর স্বাধীনচেতা মীম সব সময় চাইতেন নিজের মতো করে কাজ করতে। রং, তুলি, সুতা, পুঁথি আর ফেলে দেয়া জিনিস গুলোতে নতুন কোনো রুপ দেয়ার মাঝে এক প্রকার শান্তি খুঁজে পেতেন। স্বাধীন ভাবে কাজ করতে আর নিজস্ব উদ্যোগে স্বাবলম্বী হতেই যাত্রা শুরু করে মীমের অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান “মীম’স এক্সক্লুসিভ ওয়্যারহাউস”।।
নিজের নামেই নামকরণ করেন তার এই স্বপ্নের প্রতিষ্ঠানের। এ প্রসঙ্গে মীম জানান, ছোটবেলা থেকেই ‘আমার দ্বারা কিচ্ছু হবে না’ এই কথাটা পরিচিত জনদের কাছ থেকে এত্ত পরিমাণ শুনেছি যে, তখনই ঠিক করেছিলাম কখনো সুযোগ হলে, কিছু করতে পারলে নিজের নামেই নামকরণ করবো যাতে একটু হলেও সবাই আমাকে নিজের পরিচয়ে চিনতে পারে।।
 
“মীম’স এক্সক্লুসিভ ওয়্যারহাউস” এর অগ্রযাত্রা নিয়ে মীম জানান, ক্যারিয়ারের শুরুটা ছিলো আমার মাধ্যমিক থেকে উচ্চ মাধ্যমিকে ব্যবসায় শাখায় স্থানান্তরের পর থেকেই। সেই সময় নিজের হাতে কিছু জিনিস বানানো শুরু করি আর অল্প সময়ে জিনিস গুলো পরিবার আর বন্ধু মহলে বেশ সুনাম পেতে থাকে সেই সাথে নিজের ইনকামেরও শুরু। তখন আমার বড় ভাইয়া আমাকে বলে আমার দক্ষতাটাকে উদ্যোগ হিসেবে নিতে। আর তারপর থেকেই আমার নিজে কিছু করার পথ চলা শুরু। শুরুটা আসলে কষ্টকর ছিলো, ভালো ফোন ছিলো না তাই অফলাইনে টুকটাক পরিচিতদের কাছেই সেল করতে শুরু করি।
উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা চলে আসায় সাময়িক সময়ের জন্য কাজে শিথিলতা চলে আসে। কিন্তু ক্রাফটিং এর নেশা যখন রক্তে থাকে তখন হয়তো কোনো ভাবে দমিয়ে রাখা যায় না ৷ উচ্চ মাধ্যমিকের প্রথম বৃত্তির আট হাজার টাকা দিয়ে প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে যাত্রা শুরু করি। শুরুতে সুতার কাজের আর হ্যান্ড পেইন্টিং এর জামা তৈরি করি, যা সকলের কাছে প্রশংসনীয় হলেও কারো কারো কাছে হাসির পাত্রও হয়েছিলাম। সে সময় অনেকে কাপড়ওয়ালী বলেও ডাকতো।    
নিজের জন্য বানানো জুয়েলারি দেখে অনেক পরিচিত জনরাও বানিয়ে দিতে বলেছিল, তারপর থেকে জুয়েলারি আইটেমও বানানো শুরু করি। বর্তমানে হ্যান্ডপেইন্ট, সুতার কাজ, ব্লক, এমব্রয়ডারির ড্রেস, ক্রুশের বিভিন্ন আইটেম সহ হাতে বানানো বিভিন্ন ধরণের পণ্য রয়েছে “মিম’স এক্সক্লুসিভ ওয়্যারহাউস”এ। কিছু প্রোডাক্ট থাকে যেটা সকলের কাছে একটু বেশি প্রাধান্য পায় যেমন আমাদের হ্যান্ডলুম ব্লক ড্রেস গুলো। প্রোডাক্ট পেয়ে সন্তুষ্ট হওয়ায় গ্রাহকদের কাছ থেকেও  অনেক প্রশংসা আর ভালোবাসা পাচ্ছি৷।  

উত্তরবঙ্গে থাকায় আমার জন্য প্রয়োজনীয় ম্যাটারিয়ালস সহজলভ্য ছিল না। এমনো দিন গেছে সারাদিন পণ্যের মেটারিয়ালস কালেক্ট করতে পায়ে হেটে বেড়িয়েছি। একটাই জেদ ছিলো কিছু একটা করতে হবে। চাকরী ছাড়াও সমাজে  নিজেকে প্রতিষ্ঠিত হওয়া সম্ভব। ভাইয়াকে সব সময় আমার প্রয়োজনে পাশে পেয়েছি। ভাইয়া ঢাকায় থাকার সুবাধে খুঁজে খুঁজে মেটারিয়ালস কালেক্ট করে আমাকে পাঠাতো। ভাইয়া না থাকলে হয়তো এতটা স্বপ্ন দেখা আর সেটার বাস্তবায়ন করা সম্ভবপর হতো না। আস্তে আস্তে সাহস বেড়ে যায়, বেশী বেশী প্রোডাক্ট কেনা শুরু করি। সবার সহযোগিতা আর ভালোবাসায় কাজের গন্ডি বাড়তে থাকে। বর্তমানে বাসায় ছোট্ট বুটিক্স আছে এছাড়াও বিভিন্ন মেলাতেও অংশগ্রহণ করছি।।  

বর্তমানে আমার কাজ বেশ ভালো চলছে। কাজের অর্ডার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।  যেহেতু পড়াশোনা সামলিয়ে বিজনেসের সব দিক নিজেকেই মেইনটেইন করতে হয় তাই একটু কষ্ট হয় কিন্তু কখনো কাজের প্রতি বিরক্ত আসে না বলেই হয়তো আজও হাল ছেড়ে দেইনি ৷ অনুপ্রেরনা পাই যখন গ্রাহকের হাসিমুখ আর আমার কাজের প্রতি তাদের কৃতজ্ঞতা দেখি। প্রতিদিন অসংখ্য মানুষের ভালোবাসা পেয়ে আসছি যা আমার আত্মপ্রত্যয় বাড়িয়ে তুলছে।।
যেহেতু মার্কেটিং নিয়ে পড়ছি তাই ইচ্ছে আছে ভবিষ্যতে বিজনেস রিলেটেড কাউন্সিলিং, ট্রেনিং এবং অন্যান্য যেসব সুযোগ সুবিধা প্রয়োজন একজন উদ্যোক্তার সেসব ক্ষেত্র নিয়ে কাজ করার। আমি যেসব সমস্যার সম্মুখীন হয়েছি সেসব সমস্যা যেনো নতুন উদ্যোক্তাদের ফেস করতে না হয়।।

আমার ব্যবসায়ীক জীবনের পথচলা মাত্র শুরু সামনে অনেক কিছু করার পরিকল্পনা আছে। আমার কাজে সব সময় আমার বড় ভাইয়া, খুব কাছের কিছু বন্ধু মবিন, রিয়াদ, জুনায়েদ, কায়সার, অভি সহ অনেকেই ভেংগে পড়া সময় গুলোতে সাহস দিয়েছে, এখনো উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছে। আমার মাও আমার কাজ করার শক্তি আমার অনুপ্রেরণা। সকলের প্রতিই আমার আন্তরিক কৃতজ্ঞতা।।     

ভবিষ্যৎ নবীন উদ্যোক্তাদের উদ্দেশ্যে মীম বলেন, উদ্যোক্তা হতে চাইলে অবশ্যই নিজের ইচ্ছাশক্তি আর ধৈর্য প্রয়োজন। নিজের কাজের প্রতি সৎ থাকুন। প্রোডাক্ট মানসম্মত ভাবে তৈরি করুন। প্রোডাক্টের মার্কেট রিসার্চ করে সেই অনুযায়ী কাস্টমারদের কাছে প্রোডাক্ট তুলে ধরুন । নিজেকে জানতে শিখুন, জানুন কোন কাজে আপনার দক্ষতা আর ভালোবাসা আছে, তারপর সেই কাজে নেমে পড়ুন দেখবেন সফলতা আসবেই।।

বর্তমানে অনলাইনের মাধ্যমে ব্যবসায়ীক কার্যক্রম পরিচালনা করলেও ভবিষ্যতে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে শোরুম দেওয়া এবং “মীম’স এক্সক্লুসিভ ওয়্যারহাউস”কে দেশীয় পণ্যের বাজারে প্রতিষ্ঠিত করার প্রবল ইচ্ছা প্রকাশ করেন এই স্বপ্নবান মেধাবী তরুণ উদ্যোক্তা।।   
স্বপ্নবান মেধাবী এই তরুণ উদ্যোক্তার স্বপ্ন সফল হোক। পরিশ্রম সার্থক হোক। ইচ্ছে গুলো পূর্ণতা পাক। সকল প্রচেষ্টা বাস্তবায়ন হোক। আরও বহুদূর এগিয়ে যাক মীম।।      

আপনাকে অশেষ ধন্যবাদ জান্নাতুল ফেরদৌস মীম। শুভকামনা।।                              
 
(ব্যবসায়িক প্রয়োজনে আগ্রহীরা উদ্যোক্তা জান্নাতুল ফেরদৌস মীম’র সাথে যোগাযোগ করতে পারেনঃ +৮৮০১৭৫০০৫৩৯৫০

উদ্যোক্তা জান্নাতুল ফেরদৌস মীম


“মীম’স এক্সক্লুসিভ ওয়্যারহাউস” পেইজ লিঙ্ক – https://www.facebook.com/rmm345/

“আপনার মনকে অবহিত করুন যে সফলতা না আসা পর্যন্ত আপনি থামছেন না, এমনকি আপনি বারবার ব্যর্থ হলেও থামছেন না। ছোটবেলায় যেভাবে একবার হাঁটতে না পারলেও  পড়ে গিয়ে কান্না করতে করতে আবার দেয়াল ধরে হাঁটতে চেষ্টা করতেন, এখন আবার দাঁতে দাঁত চেপে নাছোড়বান্দার মত লেগে থাকুন। সফলতা আসবে, সফলতা আসতেই হবে।”

– Zahidul Alam Rubel
প্রতিষ্ঠাতা
ক্লিকসেবা প্ল্যাটফর্ম


Post navigation